Walton Primo S6 Hands on Review

Jan 8 • রিভিউ, স্মার্টফোন • 529 Views • No Comments on Walton Primo S6 Hands on Review

প্রযুক্তির সাথে তালমিলিয়ে চলতে ওয়ালটন বাজারে প্রতিনিয়তই নতুন নতুন স্মার্টফোন নিয়ে আমাদের সামনে হাজির হয় । মিড লেভেল ইউজারদের  চাহিদার কথা বিবেচনা করেই ওয়াল্টন বাজারে নিয়ে এলো তাদের নতুন স্মার্টফোন Walton Primo S6 ।

অন্য সকল ডিভাইসের মতো এতেও থাকছে ১ টি ইয়ার ফোন, ইউ এস বি চার্জার , ডাটা কেবল সিম ইজেক্টর এবং সব শেষে থাকছে ব্যাক কভার

এক নজরে স্মার্টফোটির ফিচারগুলো দেখে নিতে পারেনঃ

ডিসপ্লে ৫.২ ইঞ্চি এইচডি  ডিসপ্লে; ১০৮০X৭২০ রেজ্যুলেশন; ১৬ মিলিয়ন কালার সাপোর্টেড
অপারেটিং সিস্টেম অ্যান্ড্রয়েড ৭.০ নোগাট
প্রসেসর ১.৪ কোয়াড কোর প্রসেসর
র‍্যাম   ৩ জিবি
ইন্টারনাল স্টোরেজরোম ১২৮ জিবি ও ১৬ জিবি
জিপিউ মালি ৭২০
মেমোরী কার্ড স্লট আছে, সর্বোচ্চ ১২৮ জিবি পর্যন্ত
রিয়ার ক্যামেরা  ১৩ মেগাপিক্সেল
ফ্রন্ট ক্যামেরা  বিএসআই ১৬ মেগাপিক্সেল
সিম সাপোর্ট ডুয়েল ন্যানো সিম
ব্যাটারী ৪০০০ মিলি অ্যাম্পিয়ার ব্যাটারী
সেন্সর এক্সেলেরোমিটার ৩ ডি, ফিংগারপ্রিন্ট, লাইট, প্রক্সিমিটি, কম্পাস, গ্রাভেটি, আই আর ইত্যাদি
মূল্য ১৫,৫৯০ টাকা

 

ডিভাইসটির ফ্রন্ট এ থাকছে ১৬ মেগাপিক্সেল এর ক্যামেরা তার পাশে থাকছে ফ্ল্যাশ লাইট ও প্রক্সিমিটি সেন্সর ।

নিচের দিকে থাকছে ৩ টি টাচ ক্যাপাসিটি বাটন্স । বাম পাশে রয়েছে ভলিঊম রকার্স ও পাওয়ার বাটন্স ডান পাশে থাকছে ইউ এস বি  পোর্ট

 

ডিভাইস্টিতে থাকছে ৫.২” এইচ ডি ডিস্প্লে । ডিভাইসটি আপটু ৫ ফিঙ্গার মাল্টি টাচ সাপোর্টেড। ডিসপ্লেটির রেজুলেসন ১২৮০*৭২০ পিক্সেল এবং এতে ১৬ মিলিয়ন কালার সাপোর্টেড  শুধু তাই নয় এতে আরও ব্যাবহার করা হয়েছে ২.৫ ডি কার্ভড গ্লাস যা স্মার্ট ফোনটিকে আরো আকর্ষনীয় করেছে । হাই প্রটেক্টিভ স্ক্রেচ প্রুফ গ্লাস থাকায় যেকোনো ধরনের স্ক্রেচ থেকে আপনার স্মার্ট ফোনটিকে প্রটেক্ট করবে ।

যাদের স্মার্ট ফোনের প্রধান বিবেচনায় থাকে ব্যাটারি ব্যাকাপ তারা কোনো প্রকার সন্ধেহ ছাড়াই Walton Primo S6 টী পছন্দের তালিকায় রাখতে পারেন কারন এই স্মার্ট ফোনটিতে ব্যাবহার করেছে 4000 mAh Battery এর নন রিমুভএবল শক্তিশালী ব্যাটারি। যা আপনাকে  সকল প্রকার ব্যাটারি ব্যাকাপের চিন্তা থেকে দূরে রাখবে ।

 

সব সময় লেটেস্ট আপডেট পেতে কার ই না ভালো লাগে তাই এ সকল দিক বিবেচনা করেই ওয়াল্টন এই ডিভাইসটির অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে রেখেছে এন্ড্রোয়েড ৭.০ নগেড ।

Walton Primo S6 এ থাকছে ১.৪ গিগাহার্টজ এর কোয়াডকোর প্রসেসর ।

 

যেকোনো স্মার্টফোন ব্যাবহারকারীদের প্রধান চাহিদা হিসেবে  থাকে ডিভাইসটির ক্যামেরা পার্ফোম্যান্স । আর প্রিমো এস সিক্স এর রেয়ার ক্যামেরায় থাকছে বি এস অ্যাঁই সেন্সর যুক্ত ১৩ মেগা পিক্সেল এর Rear ক্যামেরা আর ফ্রন্ট এ থাকছে ১৬ মেগা পিক্সেল এর ফেইস ডিটেকশন অটো ফোকাস ক্যামেরা

 

দ্রূত গতিতে কাজ করার জন্য এতে থাকছে ৩ জিবি র‍্যাম এবং ইন্টার্নাল মেমোরি হিসেবে থাকছে ১৬ জিবি  । তাছাড়াও এতে ১২৮ জিবি পর্যন্ত মেমোরি কার্ড ইউজ করতে পারবেন ।

স্মার্ট ফোনটির সাটার স্পিড আমার কাছে একটু স্লো মনে হয়েছে ।

 

স্মার্ট ফোনটির লুক আপনাকে বিমোহিত করতে বাধ্য । এর ফুল বডি মেটালিক ফ্রেম এবং কার্ভড হওয়ায় যেকেউ এর প্রেমে পরে যেতে পারেন । এতে ফিঙ্গার প্রিন্ট সেন্সর ব্যাবহার করা হয়েছে । তবে পার্ফম্যান্সের কথা বিবেচনা করলে একটু অস্বাভাবিক মনে হয়েছে কারন সেন্সর টিতে ট্যাপ করার  বেশ কিছুক্ষন পর সেটি কার্যকরী হয়ে উঠে ।

 

গেমিং এবং ভিডিও এর জন্য ব্যাবহার করা হয়েছে মালি টি ৭২০ জিপি ইউ । এই ডিভাইসটি দিয়ে ফুল এইডি ভিডিও রেকর্ডিং এবং মিড লেভেল এর যেকোনো গেইম অনায়াসে খেলা যাবে তবে মাঝে মাঝে গেমিং এ কিছু ল্যাগিং লক্ষ করা হয়েছে ।

 

এই ডিভাইস্টিতে ব্যাবহার করা হয়েছে এমিগো ৩.২ এউ অ্যাঁই যা ডিভাইস্টিকে বেশ কিছু নতুনত্ত করে তুলেছে । এতে স্টক এন্ড্রয়েড ব্যাবহার করা হয়েছে এবং টাস্কবারটি নিচে থেকে সোয়াইপ করতে হবে । ইউ অ্যাঁই ট্রাঞ্জেশন খুব স্মুদ।

   

Walton Primo S6 এ Fingerprint, accelerometer (3D), light, proximity, compass, gyroscope, rotation vector, orientation, gravity, IR sensor সেন্সর ব্যাবহার করা হয়েছে ।

 

Walton Primo S6 এ বেশ কিছু স্পেশাল ফিচার্স থাকছে অ্যাঁই আর ব্লাস্টার এর মাধ্যমে স্মার্টফোন্টিকে রিমোর্ট কন্ট্রোল হিসেবে ইউজ করতে পারবেন । যারা মাল্টি টাস্কিং পছন্দ করেন তাদের জন্য স্পিল্ট স্ক্রিন ভালো কাজে দিবে যা দিয়ে একাদিক উইন্ডো অন করে কাজ করতে পারবেন ।

 

স্ক্রিন রেকর্ডারের জন্য আর স্মার্টফোন রুট অথবা আলাদা কোনো এপ্স ইন্টল করার দরকার নেই এর বিল্ট ইন  স্ক্রিন রেকর্ডার থাকায় কোনো আলাদা কোনো এপ্স ইউজ করতে হবে না ।

 

ডিভাইসটতে ও টি এ থাকায় যেকোনো আপডেট পেয়ে যাবেন খুব সহজেই ।

 

অনেকেই একটি স্মার্ট ফোনের বিবেচনা করে থাকে তার বেঞ্চমার্ক স্কোর দিয়ে চলুন এই বেঞ্চমার্ক স্কোর গুলো এক জলক দেখে নেয়া যাক …

ডিভাইসটি বাজারে শুধু মাত্র ২ টি কালারেই পাওয়া যাবে।

 

আশা করি আমাদের রিভিউটি আপনাদের কাছে ভালো লেগেছে । কোনো প্রকার কোশ্চেন বা আপনার যেকোনো মতামত থাকলে নিচে আমাদের জানাতে পারেন ।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

« »