Walton Primo H7 Hands On Review in Bangla!

Mar 7 • রিভিউ, স্মার্টফোন • 199 Views • No Comments on Walton Primo H7 Hands On Review in Bangla!

লো বাজেটে 18:9 aspect ration এর ডিসপ্লের স্মার্টফোন নিয়ে ওয়ালটন আবারও হাজির হয়েছে। পাশাপাশি এর সলিড শিল্ড বিল্ড কোয়ালিটি দিয়েও বাজার দখলেই এই চেষ্টাই একটু এগিয়ে থাকবে ওয়ালটন মোবাইল। আপনারা হয়তো এর মধ্য বুঝে গেছেন আজকে কোনো স্মার্টফোনের রিভিউ নিয়ে হাজির হয়েছি। হ্যা আজকে আপনাদের সামনে Walton Primo H7 এর সম্পূর্ন রিভিউ নিয়ে আমি লিখন থাকবো আপনাদের সাথে, সম্পূর্ন রিভিউটি না দেখে কোথাও যাবেন না।

 

ডিসপ্লে ৫.৫ ইঞ্চি ফুল ভিউ আইপি এস   ডিসপ্লে (১২৮০*৬৪০)
অপারেটিং সিস্টেম অ্যান্ড্রয়েড ৭ নোগাট
প্রসেসর  ১.৩ গিগাহার্জ কোয়াড কোর প্রসেসর
র‌্যাম ডিডি আর ৩  ১জিবি
ইন্টারনাল স্টোরেজ/ রোম ৮  জিবি
জিপিউ ৪০০
মেমোরী কার্ড স্লট সর্বোচ্চ ১২৮ জিবি পর্যন্ত
 রেয়ার  ক্যামেরা ৮  মেগাপিক্সেল
ফ্রন্ট  ক্যামেরা ৫ মেগাপিক্সেল
সিম সাপোর্ট ১ মাইক্রো সিম+ ১ ন্যানো সিম
ব্যাটারী ২৮৫০ মিলি অ্যাম্পিয়ার ব্যাটারী
মূল্য ৭৯৯৯ টাকা

Walton Primo H7 লো-বাজেট ক্যাটাগরিতে প্রতিনিধিত্ব করার মত স্মার্টফোন। ৭,৯৯৯ টাকার মধ্যে স্মার্টফোনটি আমার কাছে খুব একটা খারাপ মনে হয়নি। অনেকে আগে নেগেটিভ সাইড শুনতে চাই, তোঁ এটা দিয়েই শুরু করি। স্মার্টফোনটি 4জি নেটওয়ার্ক সাপোর্ট করে না। যদিও 4জি নিয়ে অনেকেরই এখন আর কোন মাথা ব্যাথা নেই। আপনি সেই দলের হলে সোজাসুজি নিয়ে নিতে পারেন এই স্মার্টফোনটি। বাজেট বিবেচনাই আর খারাপ কিছু মনে হয়নি আমার কাছে। যাইহোক, এটি সাধারনত এন্টি লেভেল ইউজারদের জন্যই আমার সাজেশনে থাকবে।

যারা দেখতে প্রিমিয়াম এমন স্মার্টফোন খুঁজছেন তারা এই স্মার্টফোনটি কন্সিডার করে দেখতে পারেন। স্মার্টফোনটির ব্যাকপার্টটি সম্পূর্ন সিল্ড করা আর এতে ম্যাট ফিনিশিং করা হয়েছে। মেটাল বিল্ড স্মার্টফোনটির উপরে এবং নিচে প্ল্যাস্টিক দেওয়া হয়েছে। এর নেটওয়ার্ক ব্যান্ড গুলো হাইলি ভিজিবল যা এর বিল্ড কোয়ালিটিকে আরো কয়েকগুন প্রিমিয়াম লুক দিতে সাহায্য করেছে । বাই দ্যা ওয়ে মেটালের উপর ম্যাট ফিনিশইং হওয়ায় স্মার্টফোনটি তেমন একটা ফিঙ্গার প্রিন্ট মাগনেট নয়।

স্মার্টফোনটি যথেষ্ট হ্যান্ডি। ৫.৫ ইঞ্চির বিগ ডিসপ্লে থাকা সর্তেও এটি রেগুলার সাইজ হওয়ায় এক হাতে অপারেট করতে পারবেন। কোনো প্রকার ঝামেলা হবে না। কিন্তু অন্য দিকে স্মার্টফোনটির ওয়েট তুলনামূলক একটু বেশি। এর কারন খোঁজার জন্য মোটেও মাগনেফাইন গ্লাস নিয়ে মাঠে নামার দরকার নেই। মেটাল বিল্ড, ২৮৫০ মিলি আম্পের ব্যাটারির পাশাপাশি ডিসপ্লের 2.5D কার্ভ গ্লাসের কারণে স্মার্টফোনটি একটু ভারী, যা আপনাকে মানিয়ে নিতে হবে।

Walton Primo H7 এর ফ্রন্ট প্যানেলে 2.5D কার্ভ গ্লাস ব্যবহার করেছে। ডিভাইসটির ফ্রন্ট প্যানেলের টপ পজিশনে 5 Mp এর ফ্রন্ট ক্যামেরা পাশাপাশি ইয়ার পিস, ও ফ্ল্যাশ লাইট থাকছে।

স্মার্টফোনটির বটমে এবং টপে তুলনামূলক ভাবে কম বেজেল ই রাখা হয়েছে। আর যে কারণে এতে টাচ কিস এর পরিবর্তে অন স্ক্রীন নেভিগেশন বার থাকছে।

এর ডান পাশে ভলিউম রকারস ও পাওয়ার বাটনটি প্লেস করা হয়েছে আর বাম পাশে সিম স্লট থাকছে। স্মার্টফোনটি হাইব্রিড স্লট থাকছে না। যার ফলে স্মার্টফোনটিতে একই সাথে ১টি সিম কিংবা এসডি কার্ড ব্যবহার করতে পারবেন অথবা ২ টি সিম ব্যাবহার করতে পারবেন।

একেবারে নিচের দিকে শুধু মাত্র লাউড স্পিকার থাকছে। উপরের দিকে পাশা পাশি অডিও জ্যাকপোর্ট, ইউ এস বি পোর্ট প্লেস করা হয়েছে।

ব্যাক সাইডের উপরেও বি এস এই সেন্সর যুক্ত 8MP এর রেয়ার ক্যামেরা তার নিচে ফ্ল্যাশ লাইট ও ফিঙ্গার প্রিন্ট সেন্সর থাকছে ।

এতে 5.5″ 18:9 Full-View Display সহ 2.5D কার্ভগ্লাস ব্যাবহার করা হয়েছে। ডিসপ্লেটির রেজুলেশন 1280×640 pixels যার পিক্সেল ডেনসিটি 262 ppi , এভারেজ 16.7 মিলিয়ন কালার সাপোর্ট করবে এই স্মার্টফোনটিতে ।ডিসপ্লেটি মোটামোটি একুরেট কালার শো করে, ফুল এইচডি ভিডিও গুলো প্লে করা যাবে এই স্মার্টফোনটি দিয়ে। ভিউ এঙ্গেল মোটামোটি । এটি আপটু 5 Finger Multi touch Supported.

Walton Primo H7 ডিভাসের অপারেটিং সিস্টেম এ Android Nougat 7.0 ভার্সন ব্যাবহার করা হয়েছে। এতে স্টক এন্ড্রোয়েড থাকছে, এপ্স ট্রাঞ্জেশন মোটামোটি স্মুথ, নোটিফিকেশন প্যানেলটি ও স্টকই রাখা হয়েছে, সুইট বিটুইন এপস ও ফাস্ট ছিলো। মাল্টি উইন্ডো থাকায় এক সাথে একাধিক উইন্ডো ব্যাবহার করতে পারবেন। তবে মাল্টি টাক্সিং এর ক্ষেত্রে মাঝে মাঝে টাচে প্রবলেম ও ল্যাগ ফেইস করতে হবে। Nougat এর প্রায় সব বিল্ট ইন ফিচার গুলো এতে বিদ্যমান। আইকন গুলো কিছুটা কাষ্টমাইজড। টাচ রেসপন্স মোটামোটি ছিল।

চলুন এবার দেখি Walton Primo H7 টি কেমন পার্ফোম্যান্স দিবে আপনাকে ।যেহেতু Walton জন্ম লগ্ন থেকেই মিডিয়াটেক এর প্রসেসর ব্যাবহার করে আসছে তাই এই ডিভাইসে এর বিপরীত কিছু আশা করা একেবারেই বোকামি। এর সিপিউতে মিডিয়াটেকের 1.3 GHz Quad Core প্রসেসর ব্যাবহার করা হয়েছে আর জিপিউ হিসেবে পাবেন Mali-400।

 

যাইহোক এতে DDR3 এর 1 GB র‍্যাম থাকছে আর রোম হিসাবে পাচ্ছেন 8 GB স্টোরেজ। আর এসডি কার্ড ব্যবহার করে সর্বোচ্চ 128 GB পর্যন্ত মেমোরি ব্যবহার করার সুবিধা থাকছে।

সেটিংস অপশন থেকে নেভিগেশন বারের স্টাইল চেঞ্জ বা হাইড করার অপশন থাকছে । ফিংগারপ্রিন্ট সেন্সরটির রেসপন্স মোটামোটি, এ বাজেটের স্মার্টফোনগুলোতে এর থেকে ফাস্ট ফিংগারপ্রিন্ট আশা করা আর আকাশ কুসুম চিন্তা করা একই কথা।

Walton Primo H7 এর গেমিং এক্সপিরিয়েন্স নিয়ে কিছুটা বেগ পেতেই হবে, কেননা মিড লেভেল এর কিছু কিছু গেইম গুলোতে ল্যাগের দেখা মিলেছে। এইচডি গেম গুলো খেলার দুসাহস না দেখানো ই ভালো । রেগুলার গেইমারদেন জন্য কিছুটা চিন্তার কারন হতে পারে. গেইম খেলার সময় একটু অভার হিট লক্ষ্য করেছি। ওভারঅল গেমিং এ তেমন একটা সন্তুষ্ট হতে পারছিনা।

Walton Primo H7 এর রেয়ার এ 8 MP এর ক্যামেরা থাকছে, ক্যামেরা ইউ আইটি ও ষ্টক রাখা হয়েছে। কিন্তু সেটিংস প্যানেলকে কিছুটা কাস্তমাইজড করার চেষ্টা করেছে ওয়ালটন।


কিছু প্রিফেক্স মুডস লাইক HDR, panorama, night mode ও face beauty মুড গুলো পাবেন। অবজেক্ট টু অবজেক্ট ফোকাসইং স্পীড মোটামুটি লেগেছে আমার কাছে আর শাটার স্পীড মোটামোটি।

এই ক্যামেরাটি,পিকচার কোয়ালিটি এভারেজ, পিকচার কোয়ালিটি মোটামুটি ভালো মানের। লো- লাইটের ছবি গুলোতে নয়েজ পাবেন। তবে এতে ফিঙ্গার প্রিন্ট সেন্সর দিয়ে ও ছবি ক্যাপচার করতে পারবেন, এই বিষয়টা আমার কাছে মজার মনে হয়েছিলো।

ফ্রন্ট ক্যামারাটি মোটামোটি লেভেল এর সেলফি আউটপুট দিবে আপনাকে।ফ্রন্ট ক্যামেরাতে ও বেসিক কিছু সেটিন্স, সুটিং মুড ও ক্যামেরা ফিচার্স পাবেন । ক্যামেরাটি দিয়ে তোলা স্যাম্পলে ইমেজ গুলো দেখে নিন,

 

Accelerometer (3D), Gravity (3D), Light (Brightness), Proximity সেন্সর গুলো পাবেন এতে।

ব্যাটারি হিসাবে 2850 mAh এর Lithium-polymer ব্যাটারি থাকছে এতে। নলমাল ইউজে অনায়াসে একদিন ব্যাকাপ দিবে, তবে দাম অনুযায়ী ব্যাটারি মানিয়ে নেয়ার মতো। একটানা ৫-৬ ঘন্টার মতো স্ক্রিন অন টাইম পেয়েছি। তবে আরো ভালো ব্যাটারি ব্যাকাপ পেতে ব্যাটারি সেভার অপশনটি অন করে নিতে পারেন।

 

স্মার্টফোনটি একটানা ব্যাবহারের ফলে বেশ ভালো হিটাপ লক্ষ্য করেছি আমি। গুড সাইড হল, স্মার্টফোনটি অপারেট করার সময় বেশ প্রিমিয়াম ফিল পাবেন তাছাড়া ও এই স্মার্টফোনটি প্রথম দেখায় যে কারো ই নজর কেড়ে নিবে। 18:9 aspect ration এর ডিসপ্লে ব্যবহারের মজাটা পাবেন কিন্তু সেই সাথে লো রেজুলেশনটা মানিয়ে নিতেই হবে। আর 4জির কথা তো আগেই বলেছি।

Walton Primo H7 এর বর্তমান বাজার মূল্য। ৭৯৯৯ টাকা আর এটি ব্ল্যাক আর গোল্ডেন ২ টি কালারেই পাওয়া যাবে তবে আমার পার্সোনালি ব্ল্যাক কালারটি ই ভালো লেগেছে।

ভিউয়ার্স আজ এ পর্যন্ত ই সামনে নতুন নতুন কি কি স্মার্টফোনের রিভিউ দেখতে চান এবং ভিডিওটি নিয়ে যদি আপনার কোনো মতামত থাকে তাহলে অবশ্যই কমেন্টস বক্সে এ জানাতে ভুলবেন না, এ সপ্তাহেই লেটেস্ট স্মার্টফোনের রিভিউ নিয়ে হাজির হবো আপনাদে সামনে ইন-শা আল্লাহ্‌। সেই পর্যন্ত আশা করি সবাই ভালো থাকবেন, আল্লাহ্‌ হাফেজ ।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

« »