Walton Primo H6 Lite Hands on Review

Aug 30 • রিভিউ, স্মার্টফোন • 179 Views • No Comments on Walton Primo H6 Lite Hands on Review

Walton এর H সিরিজের আরও একটি স্মার্টফোন Primo H6 Lite কিছু দিন আগেই বাজারে লঞ্চ করেছে। H সিরিজের ডিভাইস গুলোর ভালো ইমপ্রেশন রয়েছে বাজারে। আগের Walton Primo H6+ ডিভাইসটি সম্পূর্ণ মেটাল বিল্ড হলেও এবারের H6 Lite ডিভাইসটি প্লাস্টিক বিল্ডের। বেশ কিছু দিন পর মিড বাজেটের সুপার স্লিম স্মার্টফোন আনল Walton. কেমন হবে ডিভাইসটি জানতে আমাদের সাথেই থাকুন।

ডিসপ্লে ৫.৫ ইঞ্চি আইপিএস ডিসপ্লে; ১২৮০X৮০০ রেজ্যুলেশন; ১৬.৭ মিলিয়ন কালার সাপোর্টেড
অপারেটিং সিস্টেম অ্যান্ড্রয়েড ৭ নোগাট
প্রসেসর ১.৩ কোয়াড কোর প্রসেসর
্যাম ২ জিবি
ইন্টারনাল স্টোরেজরোম ১৬ জিবি
জিপিউ মালি টি৭২০
মেমোরী কার্ড স্লট আছে, সর্বোচ্চ ১২৮ জিবি পর্যন্ত
রিয়ার ক্যামেরা বিএসআই ১৩ মেগাপিক্সেল
ফ্রন্ট ক্যামেরা ৮ মেগাপিক্সেল
সিম সাপোর্ট ডুয়েল মিনি সিম
ব্যাটারী ২৭০০ মিলি অ্যাম্পিয়ার ব্যাটারী
সেন্সর এক্সেলেরোমিটার, গ্রাইরোসকোপ, লাইট এন্ড প্রক্সিমিটি, ম্যাগনেটিক ফিল্ড
মূল্য ৯,২৯০ টাকা

একই ধরনের প্যাকেজিং নিয়ে বাজারে এসেছে Walton Primo H6 Lite। ডিভাইসটির সাথে থাকছে চার্জিইং অ্যাডাপ্টার, ইউএসবি ডাটা ক্যাবল, হেড ফোন ও ওয়ারেন্টি কার্ড কম্বাইন উইথ ইউজার ম্যানুয়াল বুক।

স্লিম এই ডিভাইসটি ৩টি কালারে বাজারে পাওয়া যাচ্ছে। ব্ল্যাক, গোল্ডেন এবং সিল্ভার।

ডিভাইসটির  বিল্ড কোয়ালিটি চমৎকার। মিড বাজেটে অনেকদিন পর স্লিম স্মার্টফোন দেখলাম। একদম হালকা একটি ডিভাইস এটি। আর এর স্ট্যান্ডার্ড সাইজ সহজেই হাতে গ্রিপ পেতে সাহায্য করবে। একহাতে ভালোভাবেই অপারেট করতে পারবেন।

Primo H6 Lite ডিভাইসটির ফ্রন্ট প্যানেলে থাকছে ৮ মেগা পিক্সেলের ক্যামেরা, আর একেবারে পাশেই এলইডি ফ্ল্যাশ এবং স্পিকার দেওয়া হয়েছে।

থাকছে ক্যাপাসিটিভ টাচ কী। ডিভাইসটিতে ৫.৫ ইঞ্চির আইপিএস ডিসপ্লে থাকছে।

রেয়ার প্যানেলের টপ লেফট কর্নারে বিএসআই ১৩ মেগা পিক্সেলের ক্যামেরা রয়েছে। আর নিচেই রয়েছে এলইডি ফ্ল্যাশ। রাইট প্যানেলটি ব্লাঙ্ক আর লেফট প্যানেলে রয়েছে পাওয়ার বাটন ও ভলিউম রকার। টপ প্যানেলে থাকছে অডিও জ্যাকপোর্ট

এবং বোটম প্যানেলে স্পিকার গ্রিলের মাঝে থাকছে ইউএসবি জ্যাকপোর্ট।

ডিভাইসটির ব্যাক পার্টটি রিমুভেবল। আর ডিভাইসটিটে ২৭০০ মিলি অ্যাম্পেয়ারের রিমুভেবল ব্যাটারি ব্যবহার করা হয়েছে। থাকছে ২ টি ম্যাক্রো সিম কার্ড স্লট ও একটি এসডি কার্ড স্লট।

Primo H6 Lite ডিভাইসটিতে অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে অ্যান্ড্রয়েড ৭ নোগাট ব্যবহার করা হয়েছে। ইউআইটি কিছুটা কাস্টমাইড।

কোন অ্যাপডয়ার থাকছে না। আইকন গুলোও কাস্টমাইড, তাছাড়া বাকি সবকিছুই স্টক অ্যান্ড্রয়েডের মত।

ডিভাইসটিতে ৫.৫ ইঞ্চি আইপিএস ডিসপ্লে ব্যবহার করা হয়েছে। স্ক্রীন রেজুলেশন ১২৮০ * ৭২০ পিক্সেল। কালারটন মোটামুটি ভালোই ছিল। কিন্তু ব্রাইটনেসে কিছুটা কমতি রয়েছে। সানলাইট ভিজিবিলিটি ইম্প্রোভ হওয়ার দরকার ছিল।

ফূল এইচডি ভিডিও গুলো ল্যাগ ছাড়াই এঞ্জয় করতে পারবেন। বিগ স্ক্রীনের এই ডিভাইসটি ৫ টি ফিঙ্গার মাল্টিটাচ সাপোর্ট করে।

প্রসেসর হিসাবে মিডিটেকের চিপ ১.৩ গিগাহার্জ কোয়াড কোর প্রসেসর ব্যবহার করা হয়েছে। আর জিপিইউ থাকছে মালি ৪০০। একই প্রসেসর প্রায় সব ডিভাইসে ব্যবহার করছে Walton। আমার মনে হয় সময় হয়েছে একটু আপগ্রেড কিছু ব্যবহার করা।

র‌্যাম থাকছে ২ জিবি আর রোম হিসাবে পাচ্ছেন ১৬ জিবি স্পেস। একটা ভালোদিক হল ডিভাইসটিতে এসডি কার্ড ব্যবহার করে ১২৮ জিবি পর্যন্ত মেমোরি এক্সপান্ড করতে পারবেন। সুতারং মেমোরি নিয়ে তেমন চিন্তা করার দরকার নেই।

গেমিং মোটামুটি। লো গ্রাফিক্স সেটিংস এ এইচডি গেম গুলো অনেকটা ল্যাগ ছাড়াই এঞ্জয় করতে পারবেন। আমরা আশফাল্ট ৮ ও মর্ডান কমব্যাট ৫ গেম গুলো খেলেছি। পারফর্মেঞ্চ ভালোই ছিল।

বিএসআই  ১৩ মেগা পিক্সেলের ক্যামেরাটি ভালো মানের ছবি তুলতে সক্ষম। ক্যামেরা ইউআইটি স্টক। ফোকাসিইং স্পীড শাটার স্পীড ফাস্ট ছিল। বিএসআই সেন্সর থাকায় লো লাইট পারফর্মেঞ্চ মোটামুটি।

ক্যামেরা দিয়ে তোল পিকচার গুলো দেখে নিন। পিকচার ডিটেলস মোটামুটি হলেও শার্পনেসে কিছুটা কমতি ছিল।

ফ্রন্টে ৮ মেগা পিক্সেল ক্যামেরা খারাপ না। সেলফি কোয়ালিটি ভালোই ছিল।

ডিভাইসটির বেঞ্ছমার্ক স্কোর গুলো দেখে নিনঃ

ডিভাইসটির ২৭০০ মিলি অ্যাম্পেয়ারের আপনাকে ১ দিন ভালোভাবেই ব্যাকআপ দিবে।

বাজেট অনুযায়ী ডিভাইসটি ভালো। এইতো এই ছিল Primo H6 Lite এর হ্যান্ডস-অন-রিভিউ। ডিভাইস সব কিছুই আমরা তুলে ধরার চেষ্টা করেছি। আরও কিছু জানতে কমেন্ট করুন।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

« »