Walton Primo GF6 Hands on Review

Feb 5 • রিভিউ, স্মার্টফোন • 387 Views • No Comments on Walton Primo GF6 Hands on Review

লো বাজেটে এরই মধ্যে বেশ ভালো কিছু স্মার্টফোন বাজারে এনেছে ওয়ালটন । ৫ হাজার টাকার বাজেট রেঞ্জে Walton Primo GF6 অন্যান্য লো বাজেট স্মার্টফোনের তুনলনায় আমার মতে  দারুণ বিল্ড কোয়ালিটি অফার করছে । তাছাড়া 5 ইঞ্চি ডিসপ্লে, 1 গিগাবাইট রাম, 8 জিবি রোম, আর দুইপাশেই ৫ + ৫ মেগা পিক্সেল বিএসআই ক্যামেরা থাকছে, আর এর কোয়াড-কোর প্রসেসর কিছুটা হলেও স্মার্টফোনটিকে এগিয়ে রেখেছে। Walton Primo GF6 বেসিক লেভেল এর স্মার্টফোন হলেও এটি বেশ কিছু ভালো ফিচার্সও অফার করছে । এক নজরে স্মার্টফোনটির মেইন ফিচার গুলো দেখে নিতে পারেন।

এক নজরে স্মার্টফোটির ফিচারগুলো দেখে নিতে পারেনঃ

ডিসপ্লে ৫ ইঞ্চি ফুলএইচডি  আইপিএস ডিসপ্লে;
অপারেটিং সিস্টেম অ্যান্ড্রয়েড ৭ নোগাট
প্রসেসর ২.৫ গিগাহার্জ অকটা কোর প্রসেসর
র‌্যাম ১ জিবি
ইন্টারনাল স্টোরেজ/ রোম ৮ জিবি
জিপিউ মালি ৪০০
মেমোরী কার্ড স্লট আছে, সর্বোচ্চ ৬৪ জিবি পর্যন্ত
রিয়ার ক্যামেরা  ৫ মেগাপিক্সেল
ফ্রন্ট ক্যামেরা ৫ মেগাপিক্সেল
সিম সাপোর্ট ১ মাইক্রো সিম + ১ ন্যানো সিম
ব্যাটারী ২০০০ মিলি অ্যাম্পিয়ার ব্যাটারী
মূল্য ৫০৯৯ টাকা

 

বরাবরের মতো এবার ও আনবক্সিং দিয়েই শুরু করবো । Walton Primo GF6  এ অন্যান্য সব স্মার্টফোনের মতোই কমন হেডফোন, ইউ এস বি কেবল, চার্জিং এডাপ্টার, ওয়ারেন্টি কার্ড ও ইউজার ম্যানুয়াল ও অন্যান্য এক্সেসসরিজ গুলো থাকছে ।

তো ভিউয়ার্স প্রথমেই চলে যাবো ডিভাইসটির বিল্ড কোয়ালিটির দিকে । স্মার্টফোনটি  সম্পুর্ন প্লাস্টিক বিল্ড হলেও এর ব্যাকপার্টিতে টেক্সচার ফিনিশইং দেওয়া হয়েছে, যা হাতে নিয়ে খুব ভালো গ্রিপ পাবেন ।

Walton primo GF6 এর ফ্রন্ট প্যানেল এর টপ পজিশনে থাকছে বি এস এই সেন্সর যুক্ত ৫ মেগা পিক্সেল এর ফ্রন্ট ক্যামেরা ,আর ফ্রন্ট ক্যামেরার সাথেই থাকছে এল ই ডি ফ্ল্যাশ লাইট, ফ্রন্ট প্যানেল এর ঠিক নিচের দিকে থাকছে টাচ ক্যাপাসিটি বাটন্স ।

  

এই টাচ কাপাবল বাটন্স গুলোতে কোনো লাইট প্রদর্শন করে না যা নতুন ইউজারদের জন্য কিছুটা বিরিক্তকর হলেও হতে পারে । তবে কিছুদিন ব্য

বহারে এগুলো মানিয়ে নিতে পারবে ।

 

ডিভাইস্টির লেফট প্যানেলটি সম্পুর্ন খালি রাখা হয়েছে আর রাইট প্যানেল এ থাকছে ভলিউওম রকার ও স্ক্রিন রকার । আর একেবারেই উপরের দিকে থাকছে চার্জিং পোর্ট ও অডিও জ্যাক পোর্ট ।

নিচের  দিকে শুধু মাত্র মাউথ স্পিকার রাখা হয়েছে । ওয়াল্টন প্রিমো জি এফ সিক্স এর ব্যাকপার্রটি রিমুভএবল । ব্যাকপার্টি খুলার পর প্রথমেই থাকছে ২০০০ মিলি এম্পিয়ার এর লিথিয়াম আয়নের ব্যাটারি ।

টু বি ওনেস্ট ব্যাটারি ব্যকাপ তেমন পাবেন না হেবি ইউজার রা , তবে নরমাল ইউজারদের জন্য ১ দিনের ব্যাকাপ দিতে সক্ষম এই ডিভাইসটি । এই ডিভাইসটিতে একটি নর্মাল সিম ও একটি মাইক্রো সিম ব্যাবহার করতে পারবেন । সিম স্লটের পাশেই থাকছে মেমোরি কার্ড স্লট যা সর্বোচ্চ ৬৪ জিবি পর্যন্ত ব্যাবহার করতে পারবেন ।

ব্যাকপার্ট এর টপ পজিশনে থাকছে ৫ মেগাপিক্সেল এর রেয়ার ক্যামেরা,এতে থাকছে বি এস আই  সেন্সর , ডিজিটাল জুম, সেলফ টাইমার, টাচ শুট । আর প্রফেশনাল ক্যামারে মুড ত থাকছেই ।

আর এই প্রফেশনাল ক্যামেরা মুড দিয়ে এক্সপোজার ও আই এস ও কন্ট্রোল করে মোটামোটি ভালোই ছবি তুলতে পারবেন । ক্যামেরার সাটার স্পিড সন্তোষজনক ছিলো ।

 

ছবি গুলোর শার্পনেস ও কালার কন্ট্রাস্ট মোটামোটি । স্মার্টফোনটিতে রেয়ার ক্যামেরার মতই ফ্রন্ট ক্যামেরাতেও থাকছে ৫ মেগা পিক্সেল ক্যামেরা । ফ্রন্ট ক্যামেরার সেলফি কোয়ালিটি ভালোই ছিল । ক্যামেরাটি দিয়ে আমাদের তোলা পিকচার গুলো দেখে নিতে পারেন।

   

 

ডিভাইস্টিতে ব্যাবহার করা হয়েছে ১.৩ গিগা হার্জ এর কোয়াডকোর প্রসেসর এর জি পি ইউ মালি ৪০০ । এর র‍্যাম ১ জিবি ও রম ৮ জিবি থাকালেও এক্সটার্নাল স্টোরেজ হিসেবে আপটু ৬৪ জিবি পর্যন্ত ইউজ করতে পারবেন ।

এ ডিভাইসটি দিয়ে মিড লেভেল এর গেইম কোনো প্রকার ল্যাগিং ছাড়াই খেলতে পারবেন । কিন্তু ডিভাইসটি এইচডি গেম খেলার প্রযোজ্য নয়।

ডিভাইস্টিতে আরো ও থাকছে ৫ ইঞ্চি FWVGA ডিসপ্লে যার রেজুলেশন ৪৮০*৮৫৪ যা সর্বোচ্চ ১৬ মিলিয়ন কালার সাপোর্টেড । ডিভাইস্টি দিয়ে এইচ ডি ভিডিও গুলো প্লে করতে পারবেন । ভিডিও এক্সপেরিয়েঞ্চ ভাল ছিল।

 

আর এর ইউ আই টি সম্পুর্ন স্টক । ইউ আই এর ট্রাঞ্জেকশন মোটামুটি স্মুথ আর অ্যাপস ওপেনিং টাইম ও ফাস্ট ছিলো ।

  

এই ডিভাইস্টিতে বেশ কিছু স্মার্ট জেসচার থাকছে । আপনি ইচ্ছে করলে নিজের মতো করে জেসচার সেট করে নিতে পারবেন, এই সুবিধাটি নিতে সেটিংস থেকে স্মার্ট জেসচার অপশন টি এনাবল করে নিতে হবে । এতে স্পেশাল ফিচার্স হিসেবে আরো ও থাকছে স্মার্ট একশন ।

  

 

ডিভাইস্টিতে বেশ কিছু সেন্সরস পাবেন যেমনঃ  Accelerometer (3D), Light, Proximity

 

এর অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে থাকছে এন্ড্রোয়েড ৭.০ নোগেট । ওটিএ আপডেট অপশনের মাধ্যমে ওয়ালটন এর যেকোনো আপডেট গ্রহনের সুবিধা পাবেন ।

  

ওয়াল্টন প্রিমো জি এফ সিক্স শুধুমাত্র Golden এবং ব্ল্যাক এ ২ টি কালারেই পাওয়া যাবে ।তবে ব্যক্তিগত ভাবে  আমার কাছে Golden কালারটা বেশ ভালো লেগেছে ।

 

সব শেষে আমরা এটাই বলতে পারি এই স্মার্টফোন টি শুধু মাত্র এন্ট্রি লেভেল ইউজারদের জন্য ।

 

এই ছিলো ওয়ালটন প্রিমো জি এফ সিক্স এর রিভিউ । আশা করি রিভিউ টি আপনাদের কাছে ভালো লেগেছে । আমাদের যেকোনো মতামত জানাতে নিচে কমেন্টস বক্স এ কমেন্ট জানাতে পারেন ।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

« »