Trending

ওয়ালটন প্রিমো আর ৫(Primo R5) হ্যান্ডস অন রিভিউ ।এন্ড্রয়েড সমগ্র

Jul 12 • রিভিউ, স্মার্টফোন • 462 Views • 1 Comment on ওয়ালটন প্রিমো আর ৫(Primo R5) হ্যান্ডস অন রিভিউ ।এন্ড্রয়েড সমগ্র

Walton Primo R5 latest ডুয়াল 4G সম্রধ (Somriddho) সিমের সাথ আকর্শনীয় কিছু ফিচার্স নিয়ে বাজারে এসেছে । সেই সাথে এটি একটি বাজেট ফ্রেন্ডলি ও মেইড ইন বাংলাদেশের তোরি স্মার্টফোন ও বটে। আজ আমি লিখন থাকবো Walton Primo R5 এর সম্পূর্ন রিভিউ নিয়ে তো সম্পূর্ন রিভিউ টি জানতে  আমাদের সাথেই থাকুন

ডিসপ্লে ৫.৭২   ইঞ্চি ফুল ভিউ আইপি এস   ডিসপ্লে (18:9 aspect ratio)
অপারেটিং সিস্টেম অ্যান্ড্রয়েড 8.1 (GO EDITION)
প্রসেসর  ১.৩  গিগাহার্জ কোয়াড কোর প্রসেসর
র‌্যাম ২   জিবি DDR3
ইন্টারনাল স্টোরেজ/ রোম ১৬ জিবি
জিপিউ power vr rouge GE8100
মেমোরী কার্ড স্লট সর্বোচ্চ ১২৮  জিবি পর্যন্ত
 রেয়ার  ক্যামেরা ১৩ মেগাপিক্সেল
ফ্রন্ট  ক্যামেরা ৮  মেগাপিক্সেল
সিম সাপোর্ট ১  মাইক্রো  + ১ মাইক্রো( দুটোই ৪জি)
ব্যাটারী ৩০০০  মিলি অ্যাম্পিয়ার ব্যাটারী
মূল্য  ৯৯৯৯ টাকা

স্মার্টফোনটি সলিড বিল্ড কোয়ালিটির । ব্যাকপার্টটি প্লাস্টিক বিল্ডের পাশা পাশি রিমুভেবল ও ম্যাট ফিনিশিং ।

স্মার্টফোনের ব্যাক সাইডটি কিছুটা কার্ভড । 5.72 ইঞ্চির এই স্মার্টফোনটি নিঃসন্ধেহে এক হাতে কোনো প্রকার ঝামেলা ছাড়াই ব্যাবহার করতে পারবেন।

+ রেয়ার সাইডের উপরে ও নিচের নেটওয়ার্ক ব্যান্ড গুলো হাইলি বিজিবল হওয়াতে দেখতে বেশ প্রিমিয়াম লাগছে। ব্যাক সাইডের টপে থাকছে BSI সেন্সর যুক্ত 13MP এর Autofocus Camera তার নিচে LED Flash লাইট তার পর পর ই ফিঙ্গার প্রিন্ট সেন্সরটি পাবেন। এই ফিঙ্গার প্রিন্ট সেন্সর টি বেশ ফাস্ট ও একুরেট। ব্যাক সাইডের সর্বশেষে থাকছে লাউড স্পিকার

 

 

ফ্রন্ট প্যানেলটি সম্পূর্ন গ্লাসের। এর ডিসপ্লে সাইজ ৫.৭২ ইঞ্চি এতে আই পি এস ডিসপ্লের পাশা পাশি 2.5 D কার্ভড গ্লাস ও ব্যাবহার করা হয়েছে । ডিসপ্লেটির ছোটো খাটো স্ক্যাচ প্রটেকশনের কথা চিনতে করে এতে স্ক্যাচ রেসিস্ট্যান্ট গ্লাস ব্যাবহার করা হয়ছে । এতো কিছুর ভীড়ে আরেকটি কথা বলতে ভুলেই গিয়েছিলাম এটি কিন্তু 18: 9 এর ফুল ভিউ ডিসপ্লে

 

স্মার্টফোনটির ডান পাশে ভলিউম রকার ও পাওয়ার বাটন্স পাবেন লেফট সাইডটি ফুল্লি ব্ল্যাংক থাকছে টপ সাইডে 3.5 mm অডিও আউটপুট জ্যাক আর নিচে মাউথ পিস ও চার্জিং পোর্ট থাকছে ।

এই স্মার্টফোনের আকর্ষনীয় বা স্পেশাল ফিচার্স গুলোর মধ্য একটী হলো এতে একই সাথে ২ টি ৪ জি সিম ব্যাবহার করতে পারবেন।

ব্যাকপার্টি খুললে দেখা মিলবে ২ টি মাইক্রোসিম কার্ড স্লট ও একটি মেমোরি কার্ড স্লট যেখানে আপনি চাইলে এক্সটার্নাল হিসেবে সর্বোচ্চ ১২৮ জিবি পর্যন্ত ব্যাবহার করতে পারবেন।

সম্পূর্ন স্মার্টফোনটিকে ব্যাকাপ দিতে এতে ব্যাবহার করা হয়েছে ৩ হাজার মিলি আম্পিয়ারের রিমুভেবল ব্যাটারি। এর ব্যাটারি ব্যাকাপ নিয়ে কারো কোনো প্রকার চিন্তা না করলে ও হবে । এতে টানা ৩ ঘন্টার আসে পাশে স্কিন অনটাইম পেয়েছি । আর নরমাল ইউজে ১ দিনের মতো ব্যাটারি ব্যাকাপ পাবেন। স্মার্টফোনটি সম্পূর্ন চার্জ হতে প্রায় ১ ঘন্টার মতো সময় লাগে ।

 

এতো বড় ডিসপ্লেতেও সব দিকে চিনের পরিমান একটু বেশি ই মনে হলো আমার কাছে । এতে টাচ ক্যাপাসিটিভ কিসের পরিবর্তে অন স্ক্রিন নেভিগেশন বার দেয়া হয়েছে ।

এবার এর সফটওয়্যার সেকশনে দিকে যাওয়া যাক অপারেটিং সিস্টেমে এতে থাকছে Android 8.1.0 Oreo । এতে কাস্টম ইউ আই ব্যাবহার করা হয়েছে তাই বেশ কিছু কাষ্টমাইজেশনের সুবিধা পাবেন । এর অপটিমাইজেশন এপ্স ট্রাঞ্জিশন ও এপ্স অপেনিং টাইম খুব স্মুথ ও ।

ডিভাইসসের মধ্যে 5.72 inch এর HD IPS panel এর ডিস্পলে ইউজ করা হয়েছে । ডিসপ্লে রেজুলেশন 1440*720p । মোটামুটি ভালোই শার্প একটি ডিসপ্লে। ডিস্পলে টি 26 million color supported। ডিস্পলে্টি বেশ যথেষ্ট ভাইয়ভ্রেন্ট কালার শো করে । ডিস্পলে কালার রি প্রডাকশন এবং কন্ট্রাস্ট সব কিছুই বাজেট অনুযায়ী পারফেকট ।

Day light visiblity বেশ ভালো ছিলো ।ফুল এইচ ডি ভিডিও গুলোর শার্প্নেস এবং ভিউইং আংগেল মোটামোটি । ফুল এইচডি ভিডিউগুলো ইজিলি প্লে করতে পারবেন কোনো প্রকার সমস্যা ছাড়াই ।

ফ্রন্ট এবং রেয়ার দুটোতেই থাকছে BSI sensor যুক্ত ক্যামেরা । তাছাড়া ক্যামেরা ইউ আই বেশ ইউজার ফ্রেন্ডলি ।থাকছে HDR,panarama,Face beauty,color effecs ইত্যাদি মোড। ক্যামেরার ডে লাইট ও লো লাইট পারফরমেন্স বেশ ভালো । যদিও লো লাইটের ছবিগুলোতে নয়েজ পেয়েছি। ডাইনামিক রেঞ্জ ডেললাইটে বেশ ভালো ছিলো তবে ডে লাইটের ছবি গুলো খুব ই শার্প এবং ডিটেইলস average। তারপরেও BSI sensor এর জন্য তূলোনামূলক ভাবে ভালো ছবি ক্যাপচার করতে পারবেন।

আর ফ্রন্ট ক্যামেরা দিয়ে ও বেশ ভালো কোয়ালিটির সেলফি নেওয়া যাবে। রেয়ার ক্যামেরাতে প্রফেশনাল ক্যামেরা মুড থাকছে যার ফলে আপনার ইচ্ছে মতে ক্যামেরা সেটিন্স কন্ট্রোল করে ভালো মানের ছবি ক্যাপচার করতে পারবেন।

এর স্মার্টফোনের ক্যামেরা সেকশনের একটা প্লাস পয়েন্ট হলো ফ্রন্ট ও রেয়ার ২ টো ক্যামেরা দিয়েই আপনি ফুল এইচডি ভিডিও করতে পারবেন। তবে রেয়ার ক্যামেরার ভিডিও কোয়ালিটি ফ্রন্ট থেকে বেটার । ভিডিও গুলোতে কিছু নয়েজ পাবেন ।

 

এতে 1.3 ghz এর কোয়াড কোরের প্রসেসর ব্যাবহার করা হয়েছে । গ্রাফিক্স প্রসেসিং এর জন্য আছে PowerVR Rouge GE8100 GPU। ২ জিবি DDR 3 র‍্যাম আর 16 জিবি রমের কম্বিনেশনে বেশ ভালো পার্ফরমেন্স পাবেন। মাল্টিটাস্কিং খুব ই স্মুদ।

এতে হাই গ্রাফিক্সের গেইম গুলো এতোটা স্মুদ না হাল্কা টুকটাক ল্যাগ পাবেন আর মিডিয়াম গেইম গুলো একেবারেই স্মুদ। তো মিডিয়াম গেইম খেলার জন্য পারফেক্ট ডিভাইস এটি। এতে আমরা টানা অনেক্ষন গেইম খেলেছি তারপরো কোনো হিটিং ইস্যু খুজে পাইনি । তাছাড়া লম্বা সময় পার্ফোম করার সময় ও কোনো প্রকার প্রব্লেম ফেইস করি নি।

এই স্মার্টফোনে স্লপিট স্ক্রিন, স্মার্ট একশন, স্মার্ট জেসচার ও ওটি জি সহ বেশ কিছু স্পেশাল ফিচার্স পাবেন ।

আমরা মোটামোটি সবাই কম বেশি স্লপিট স্ক্রিন, স্মার্ট একশন, স্মার্ট জেসচার এর সুবিধা জানি সো এ বিষয়ে আর ডিটেইড কিছু বলছি না এই রিভিউতে। এর ফেইস আনলকটি ডে লাইটে বেশ রেস্পন্সিভ তবে লো লাইটে আনলক করতে মাঝে মঝে মিস হয়েছে, অভার অল বাজেট বিবেচনায় ফেইস আনলক বেশ ভালো ।

Walton Primo R5 শুধু মাত্র ব্ল্যাক অলিভ ও গোল্ডেন এ দুটি কালারেই এভেলএবল আর এই স্মার্টফোনটির বর্তমান বাজার মূল্য 9,999 টাকা।

Related Posts

One Response to ওয়ালটন প্রিমো আর ৫(Primo R5) হ্যান্ডস অন রিভিউ ।এন্ড্রয়েড সমগ্র

  1. Shawon says:

    Hi Vai ! Good Review . Kintu Er Chipset Ti Ki , Please Bolben…..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

« »