অবশেষে তদন্ত শেষ হলো গ্যালাক্সি নোট ৭ এক্সপ্লোশন

Dec 18 • নিউজ • 69 Views • No Comments on অবশেষে তদন্ত শেষ হলো গ্যালাক্সি নোট ৭ এক্সপ্লোশন

এ  বছরের সবচেয়ে আলোচ্য বিষয় ছিলো গ্যালাক্সি নোট ৭. স্যামসাং এর দাবী অনুযায়ী এটা ছিলো সবচাইতে আধুনীক ফিচার সম্পন্ন স্মার্টফোন। যতটা না ফিচার নিয়ে, তার বেশি আলোচনা  ছিলো বিস্ফোরণ নিয়ে। প্রথমে চীনের একজন ইউজারের স্মার্টফোন বিস্ফোরণ হয়। সেটা নিয়ে তখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক আলোচনা হয়। স্যামসাং বিষয়টা প্রথম আমলে না নিলেও এক মাসের ব্যবধানে প্রায় ৭০ টা মোবাইল বিস্ফোরণ ঘটলে টনক নড়ে স্যামসাং এর। নিজেদের ইমেজ রক্ষায় তারা পুরো বিশ্ব থেকে গ্যালাক্সি নোট ৭ ”রিকল” করে নেয়।

স্যামসাং ধারণা করে মূলত ত্রুটি পূর্ণ ব্যাটারির কারণেই এই বিস্ফোরণ ঘটে। আমেরিকা, অস্ট্রেলিয়া, ইউকে থেকে সব গ্যালাক্সি নোট ৭ প্রত্যাহার করে নেয়ার এক মাসের মধ্যে আবারো গ্যালাক্সি নোট ৭ হ্যান্ড ওভার করা হয় গ্রাহকদের  মধ্যে। কিন্তু আবারো স্মার্টফোনটি বিস্ফোরণ ঘটতে থাকে। ইনফ্যাক্ট রিপ্লেস করা স্মার্টফোন আবারো ব্লাষ্ট হতে শুরু করে। এই পরিপ্রেক্ষিতে আমেরিকার বিমান কর্তৃপক্ষ বিমানের মধ্যে গ্যালাক্সি নোট ৭ বহন নিষিদ্ধ ঘোষণা করে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শুরু হয় স্যামসাং গ্যালাক্সি নোট ৭ নিয়ে ট্রল বানানো। অনেকেই গ্যালাক্সি নোট ৭ কে হ্যান্ড গ্রেনেড হিসেবে আখ্যায়িত করে। এমন অবস্থায় স্যামসাং ২য় বারের মত গ্যালাক্সি নোট ৭ রিকল করে। শুধু তাই নয়, পুরো বিশ্বে-ই গ্যালাক্সি নোট ৭ বিক্রি এবং উৎপাদন বন্ধ করে দেয়। পরে স্যামসাং নিজেরা তদন্ত শুরু করে। ইতিমধ্যেই তদন্ত শেষ হয়েছে। প্রায় ৩ মাস তদন্তের পর কোরিয়ান টেস্টিং ল্যাবরেটরীতে রিপোর্ট জমা দেয় স্যামসাং।

যাই হোক, রিপোর্ট-টা কয়েকদিনের মধ্যেই World Wide রিলিজ করা হবে। তবে তদন্তে পাওয়া তথ্য মতে ত্রুটি পূর্ণ ব্যাটারি নয়, বরং গ্যালাক্সি নোট ৭’র টাইট ডিজাইনের কারণেই এই বিষ্ফোরণ

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

« »